দুশ্চিন্তা লাঘবের সহজ উপায়

  • 0

দুশ্চিন্তা লাঘবের সহজ উপায়

দুশ্চিন্তা লাঘবের সহজ উপায়

সত্য মনোবিজ্ঞানের ভাষায় সত্য চিন্তার বিপরীত হচ্ছে দুশ্চিন্তা। সত্য চিন্তা মানুষের প্রকৃতিজাত। সত্য চিন্তায় থাকে সত্য বিশ্বাস। সত্য বিশ্বাস মানে ধর্মীয় বিশ্বাস। প্রত্যেক মানুষ কোনো না কোনো ধর্মে বিশ্বাসী। তবে ইসলামই হচ্ছে আল্লাহর মনোনীত জীবন বিধান।

দুশ্চিন্তা

দুশ্চিন্তা

মানুষ যখন নিজের ইচ্ছাকে কেন্দ্র করে তার কর্মপরিচালনা করতে চায় তখান তার মনের মধ্যে দ্বন্ধের সৃষ্টি হয়। এই দ্বান্ধিক মনোভাব তাকে নানা ধরনের বুদ্ধির কূটকৌশলে আটকে রেখে নানা জটিলতার সৃষ্টি করে। এ ধরনের মন সব সময় অসুস্থ থাকে। আরো স্পষ্টভাবে বলা যায়, মানুষ যখন তার মনের আনুগত্য করে তখন সেখানে সত্যেল আনুগত্য বিলুপ্ত হয়ে যায়। কামনা বাসনাকে যারা ইলাহ (উপাস্য) বানিয়ে নেয় তারা মনের আনুগত্যের কারণে দিশেহারা হয়ে যায়। তাদের মনের মাঝে বিরাজ করে দুশ্চিন্তা। সত্য চিন্তা, ইতিবাচক চিন্তা, তাদের মন থেকে দূরীভূত হয়ে যায়। তাই দুশ্চিন্তার বড় ওষুধ বিশ্বাসের আনুগত্য। বিশ্বাসের ভিত্তিতেই তার মনে সত্য চিন্তার বিকাশ হবে। সত্য চিন্তার বিকাশ হলে তার মন সুন্দর এবং পবিত্র হয়ে যাবে। যে মান পার্থিবজীবন ও তার চাকচিক্য থেকে নিজেকে মুক্ত রেখে মহান আল্লাহর আনুগত্যে নিবেদীত হবে সে মন শক্তিশালী হবে। এমন কোনো সহজাত বস্তকে ভয় করো না। দুনিয়াবি কোনো শক্তির ভয়ে সে ভিত হবে না। সর্বক্ষণ সর্বকাজে এ মনের ভরসা হবে আল্লাহ তায়ালা। বলুনতো এ ধরনের মনে কখনো কি দুশ্চিন্তা বাসা বাঁধতে পারে? যখন আমাদের মনে কোনো দুশ্চিন্তার ছায়া আমরা দেখতে পাবো, তৎক্ষনাৎ আমাদের আত্মবিশ্লেষণ করতে হবে। বিচার বিশ্লেষণ করে দেখতে হবে, কোথাও আমাদের বিশ্বাসে কিংবা ভরসায় অন্য কোনো শক্তির অনুপ্রবেশ ঘটেছে কি না। সাপ, বিচ্ছু, সিংহ, বাঘ বা অন্য কোনো শক্তির ভয়ে আমরা ভীত কি না। কিংবা কোনো লোভ লালসার প্রলোভন মনকে বিপথগামী করছে কি ান। মন যখন ইচ্ছার আনুগত্য করে, অর্থের আনুগত্য করে, সামাজিক শক্তির আনুগত্য করে, নাম খ্যাতির আনুগত্য করে, তখন বুঝতে হবে মন তার আনুগত্যে ব্যস্ত রয়েছে। সত্য মনোবিজ্ঞানের বিশ্লেষণে এ ধরনের মন সব সময় দুশ্চিন্তাগ্রস্থ থাকে। তাই মনকে তার মনের আনুগত্যে ফিরিয়ে আনতে পারলেই দুশ্চিন্তা কেটে যাবে। মনের প্রশান্তি ফিরে আসবে। মনকে দুশ্চিন্তামুক্ত রাখার প্রধান উপায় হচ্ছে, মহান আল্লাহকে একমাত্র অভিভাবক হিসেবে আনগত্য করা। যে মন আল্লাহর বিধানের অনুসারী হবে সে মন সব সময় প্রফু্ল্ল থাকবে। মহানবী সা: এর অনুসারী মনই সত্যিকার ভালো মন। মনে রাখতে হবে, যে মন তার মনের আনুগত্য করবে সে মনে সব সময় ভয়,  অস্থিরতা, আতঙ্ক, উদ্ভেগ, উৎকন্ঠায় নিমজ্জিত থাকবে। এ ধরনের মন শয়তানের অনুসারী মন। প্রচলিত মনোবিজ্ঞানে দুশ্চিন্তামুক্ত মনের জন্য বহু কথা বলা হয়েছে। কাউন্সেলিং এবং পদ্ধতিগত বেশ কিছু উপায় উপকরণের নির্দেশনাও রয়েছে এসব ধর্মনিরপেক্ষ মতবাদে। মনো বিশ্লেষণ, মনোকথণ, মেডিটশন, ডায়ানোটিক্স, মনো থেরাপি, মিউজিক থেরাপি ইত্যাদি বহু পদ্ধতি রয়েছে দুশ্চিন্তা লাঘবের উপায় হিসেবে েএ ধরনের বিভিন্ন ব্যবস্থাপনায় মানিসিক দুশ্চিন্তা লাঘবের যেসব পদ্ধতি রয়েছে তা দ্বারা মনের সাময়িক উন্নয়ন ও প্রশান্তি লাভ সম্ভব হলেও সত্যিকার সাফল্যের হার খুবই কম। তাই সত্য মনোবিজ্ঞান (True Psychology) সত্যিকার মনো প্রশান্তির জন্য ধর্মীয় বিশ্বাস প্রতিস্থাপনে বিশ্বাসী। বহু রোগীর জীবন বৃত্তান্ত বিশ্লেষণ করে আমরাও বলতে চাই, দুশ্চিন্তা লাঘবের প্রধান এবং একমাত্র উপায় হচ্ছে ধর্মীয় বিশ্বাসের অনুশীলন। ইসলামের মহান বিধানে দুশ্চিন্তার কোনো অস্তিত্ব নেই। কারণ ইসলামে আনুগত্যশীল ব্যক্তির প্রধান ভরসা এবং অভিভাবক হচ্ছে স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা। সুতারাং মনকে শুধুমাত্র আল্লাহর অনুগত রাখতে পারলে সে মনে কখনো কোনোভাবেই দুশ্চিন্তা বাসা বাঁধতে পারবে না। তাই আবারো বলছি, আল্লাহর আনুগত্যশীল মন কখনো কোনোভাবেই দুশ্চিন্তাগ্রস্থ হতে পারে না।

তাজওয়ার তাহমীদ

ইসলামিক সাইকো থেরাপি ফিচার

                পরামর্শ ও মেসেজ পেতে এসএমএস করুন :

০১৭৪৭ ১২৯৫৪৭, ১০৫৫৬৬৩১১৯৬৫


Leave a Reply