রক্তপাতহীন লেসার অস্ত্রোপাচার

  • 0

রক্তপাতহীন লেসার অস্ত্রোপাচার

Category : Health Tips

রক্তপাতহীন লেসার অস্ত্রোপাচার

লেসার এক বিশেষ ধরনের আলো। যা থেকে পাওয়া যায় প্রচুর তাপ। এই তাপকে কাজে লাগিয়েই অপারেশন করা হয়। সার্জেনের কাছে লেসার তাই নেহাতই এক ছুরি বিশেষ।

মনে পড়ে গেল ছেলেবেলার সেই আতশ কাচে স্পট ধরার কথা। একরাশ আলো কাঁচ পার হয়ে বিন্দুর মাপে এলে পড়ত কাপড়ে। খানিকবাদে বিন্দু থেকে ছড়িয়ে পড়ত আগুন। অনেকখানি আলোকে এক করে তার ভেতরের তাপকে বহুগুণ বাড়িয়ে তোলার এই তত্বের ওপর ভিত্তি করেই তৈরি আজকের লেসার।

ক্যান্সার, গায়নোকলজি থেকে শুরু করে ইউরোলজিং, ই এন টি জেনারেল এবং এন্ডোস্কোপিক সার্জারি সর্বত্র ব্যবহৃত হচ্ছে এই পদ্ধতি।

পুরনো সব প্রথা বদল করে কেন একে ব্যবহার করতে চাইছেন সবাই সে প্রসঙ্গে ক্যান্সার সার্জেন ডাঃ এ পি মজুমদার জানালেন, যেকোনও বড় অস্ত্রোপাচারের ক্ষেত্রেই প্রধান সমস্যা রক্তপাত।

লেসার সিস্টেমে এই জাতীয় অসুবিধে একেবারেই নেই। এর সাহায্যে প্রায় রক্ত না ঝরিয়ে সুক্ষভাবে স্তরের পর স্তর উন্মুক্ত করা যায়। এককবারে পরিস্কার হয় মাত্র ০.৫ মিমি পথ। ফলে সুক্ষ অপারেশনের জুড়ি নেই। কম টিস্যু ক্ষতিগ্রস্থ হবার দরুন রোগ সংক্রমনের সম্ভাবনা যেমন কম, রোগীও সুস্থ হয়ে ওঠেন খুব তাড়াতাড়ি। রক্ত দেবার প্রায় প্রয়োজন হয় না। নিখুতভাবে কাজ হয় বলে অপারেশন সারাতে সার্জেনের সময় লাগে কম। সব  মিলিয়ে ব্যাপারটা যা দাড়ায়, প্রাথমিকভাবে খরচ লাগলেও সব মিলিয়ে তা উসুল হয়ে যায় বরং কিছু কম। তা পুরোপুরি উসুল হয়েও রোগীর বাড়তি পাওনা হয় কিছু।

অপারেশনের পর রোগীর শারীরিক কষ্ট কম থাকে। হাসপাতালে থাকতে হয় কম দিন। সব কিছু কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত বলে অঘটন ঘটার সম্ভাবনা এই যন্ত্রে কম।

যন্ত্রের আরও একটি সুবিধের কথা  হচ্ছে কিছুদিন আগেও অত্যাধুনিক ছিল যে পদ্ধতি বিম লেসার সিস্টেম, তাতে কাট ছেড়ার কাজ ঠিকটাক হলেও কয়েকটি অসুবিধে ছিল। ফ্রি বমে ফাইবারে তৈরি লেসার প্রোবের মুখ থাকে খোলা। সেখান থেকে সোজাসুজি বেরিয়ে আসা লেসার আলো দিয়ে অপারেশন করেন সার্জেনরা। সরাসরি ছুরি কাচি ধরে কাটাছেড়া নয়, অনেকটা শুন্যের মাঝে আকিবুকি কাটার মতো ব্যাপার। কোন অংশ কাটতে বা পোড়াতে হবে তা ঠিক করে, কতদুর থেকে লেসার এসে পড়লে সেই অংশটুকু কেবল কাটবে বা পুড়বে তা হিসেব করতে হত। তারপর সেই দুরুত্ব বরাবর শুন্যের মাঝে প্রোব চালিয়ে কাটার ব্যাপার।

ফলে ইউরো সার্জারির জগতে যুগান্তর নিয়ে এসেছে সবত্রই। এই লেসার গ্লাস অথবা কোয়ার্জ ফাইবারের মধ্যে দিয়ে দিব্যি আঁকাবাঁকা পথে চলতে পারে বলে যেকোনও এনন্ডোস্কেপের মধ্যে দিয়ে শরীরের অলিগলিতে ঢুকে কাজ কা তার পক্ষে সম্ভব। এন্ডোমেট্রিওসিসে জরায়ুর মধ্যে জমে থাকা রক্তের ডেলা যেমন হিসটোরোস্কোপের মাধ্যমে পুড়িয়ে আসে, তেমনই নিঃশেষ করতে পারে সাইনাসে জমা শ্লেষ্মা। (এন্ডো সাইনাস সার্জারি)। বিলেত আমেরিকায় তো নাক ডাকার, চিকিৎসা করে লাখো টাকার কারবার করছে লেসার। রোগীর কষ্ট কমাত ইসোফেগোস্কেরে সাহায্যে ক্যান্সার বুজে যাওয়া খাদ্যনালী পরিষ্কার করছে সে।

স্বরযন্ত্রের টিউমার পুড়িয়ে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরিয়ে আনছে অজস্ত্র শিশুকে। লেসার দিয়ে এন্ডোস্কোপিক পদ্ধতিতে প্রস্টেট অপারেশন চলছে দেশে বিদেশে। আচিল কেটে বাদ দেওয়া বা উস্কির দাগ মোছা থেকে শুরু করে জটিলতম ক্যান্সার অপারেশন বা নিউরোসার্জারি কোনও কাজেই দ্বিধা নেই তার। আর অ্যাপেনডিক্স হার্নিয়া, গলব্লাডার তো প্রায় রুটিনমাফিক কাজ। সর্বত্রই সেই এক ব্যাপার। প্রায় রক্তপাতহীন অপারেশন। সুমু


Leave a Reply