স্লিম সতেজ ফিটনেস প্ল্যান

  • 0

স্লিম সতেজ ফিটনেস প্ল্যান

Category : Health Tips

স্লিম সতেজ ফিটনেস প্ল্যান

সবাই এখন স্বাস্থ্য নিয়ে বেশ সচেতন। রোগা, শুকনো বরং ফিট থাকার চেষ্টায় মগ্ন সবাই। আজকাল মহিলাদের আড্ডায় কাজের লোক আর গহনা কাপড়ের গল্পের জায়গা দখল করে নিয়েছে ডায়েট, কে কী খাচ্ছে, কার কতটা ওজন কমল, সেজন্য খেল বা কী এক্সারসাইজ করলে যেন দুর্বল না হয়ে ফিট থাকে, এমনতরো নানা গল্প।

অনেক দিন পর কলেজের বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডায় বসেছে শীলা, নীতু, পাল্লা, আন্না। সবাই দারুন খুশি। সংসার, বাচ্চাদের গল্প বাদেও প্রধান আলাপ চলল ডায়েট আর ফিটনেসের ওপর। সবাই জানে পলা মিষ্টি খেতে দারুন পছন্দ করে, তারপরও এত সুন্দর সে নিজেকে কীভাবে রাখল এটা নিয়ে নানা কথা চলতে থাকে। পলা বলল,  মিষ্টি বারণ হলেও জিরোক্যাল মানা নেই। পছন্দের মিষ্টিগুলো জিরোক্যাল তৈরি করে খায় ও। বাড়িতেও সবাই এভাবেই অভ্যস্ত। তাই চিনির প্রয়োজন নেই। আবার মিষ্টিও খেতে বাধা নেই। ডায়েট চার্টেও অনেক নিয়ম থাকে। যদি কষ্ট করে সে চার্ট অনুসরণ করা যায় তবে স্বাস্থ্য সুন্দর, ফিট আর আর্কষণীয় করতে বাধা নেই।

আমরা অনেকেই হয়েতো জানি না আমাদের ওজনটা রাখতে হয় উচ্চতা অনুযায়ী। তা না হলে আমরা ডায়েটে বেশি রোগা হয়ে যাই, না হয় মোটা হয়ে যাই। এক্ষেত্রে কোন উচ্চতায় কতটা ওজন রাখা উচিত সেটা জানা প্রয়োজন।

আজকের দিনে ওজন কমানো কিন্তু আর কষ্টসাধ্য ব্যাপার নয়। মাত্র সাত দিনেই আপনি ঝরিয়ে ফেলতে পারেন ১০- ১৭ পাউন্ড ওয়েট। সকাল বিকাল হাফ ঝরানো ওয়াক আউট বা না খেয়ে থাকতে হবে না। সাত দিনের ডায়েট চার্ট মেনে নিলেই হয়ে যাবেন স্লিম তরুনী।

       কী কী খাবেন ঃ প্রথমেই মনে রাখতে হবে সাত দিনের এই ডায়েটে ১০ গ্লাস করে পানি খেতেই হহবে।

প্রথম দিনঃ সারাদিন শুধু ফল খেয়ে থাকতে হবে। কলা ছাড়া। তবে মেলন জাতীয় ফল যেমন তরমুজ খেলে সব থেকে বেশি ভালো।

দ্বিতীয় দিনঃ আজ সবজি দিবস। যত ইচ্ছে তত খেতে পারেন। নির্দিষ্ট কোনো পরিমাপ নেই। গাজর মটরশুটি জাতীয় সবজি কাঁচাই খাওয়া যায়। কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেটের জন্য ব্রেকফাস্টে খেতে হবে একটা বড় সেদ্ধ আলু।

তৃতীয় দিনঃ এ দিনে ফল আর সবজি মিলিয়ে মিশিয়ে খেতে হবে। আপনি ইচ্ছেমতো পরিমাণে খেতে পারেন। কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। তবে কলা আর আলু চলবে না।

চতুর্থ দিনঃ সারাদিনে ৮ টা কলা আর তিন গ্লাস দুধ খাবেন। মাঝে দুয়েকবার জিএম এর ওয়ান্ডার স্যুপ খেতে হবে। স্যুপ বানানো খুব সহজ। পরিমাণমতো পানিতে ৬ টা বড় পেঁয়াজ, দুটো কাঁচামিরচ , কয়েকটা টমেটো, একটু বাধাকপি, একগোছা সেলোরি ফুটিয়ে নিন।

পঞ্চম দিনঃ একদিন আপনার স্বাদের দিন। মেন্যুতে থাকবে মাটন বা বিফ আর টমেটো। সারদিনে ৫৬৭ গ্রাম মাংস আর ৬ টা টমেটো খেতে পারবেন। হামবাগারও চলতে পারে। খাওয়ার পানি ৯৪৬ মিলিমিটার বাড়িতে দিতে হবে। যেন একদিনে সিস্টেমে সে ইউরিক অ্যাসিড তৈরি হয়েছে তা বেরিয়ে যায়।

যষ্ঠ দিনঃ ইচ্ছেমতো মাংস আর সবজি খাওয়া যাবে।

সপ্তম দিনঃ শেষ দিনে হাসিমুখে সব খাওয়া যাবে পরিমাণমতো। ব্রাউন রাইস, ফলের জুস আর সবজি। মনে রাখবেন বেশিরভাগ সময় বয়লেড  ফুড কেতে হবে। পানি পারিমাণমতো আর চা কফিতে জিরোক্যাল। দেখবেন সৌর্ন্দযের সঙ্গে সঙ্গে ফিটনেসের কমতি হবে না।


Leave a Reply