কানে ময়লা জমলে কী করবেন

  • 0

কানে ময়লা জমলে কী করবেন

কানে ময়লা জমলে কী করবেন

কানে ময়লা জমা খুবই সাধারণ একটি ব্যাপার। প্রায় প্রতি পরিবারেই কেউ না কেউ এতে ভুগেই থাকেন। অনেক ছেলেমেয়ে খেলছে, অপরের সাথে মেলামেশা করছে কিন্তু হয়তো মা ডাক দিলেন সে জবাব দিল না। মায়ের বকুনি শুনে সে তো হতভম্ব! মা ভাবলেন, কানের গুরুতর রোগের কারনে তার শ্রবণশক্তি হ্রাস পেয়েছে। কিন্তু ডাক্তারের কাছে গেলে দেখা গেল তা নয়। কানে ময়লা জমার কারনেই সে শুনতে পাচ্ছে না। কানের রাস্তায় এত ময়লা জমেছে যে, শব্দ কানের পর্দায় পৌঁছাতেই পারছে না। শুধু বাচ্চাদের বেলাতেই নয়, বয়স্কদের বেলাতেও এমন ঘটনা ঘটতে পারে।

কানে ময়লা

কানে ময়লা

কানের ময়লা কেমন করে জমে?

       কানের ময়লা ডাক্তারী নাম হলো সেরুমেন। কানের খোলের দেওয়াল থেকেই এর জন্ম। এটাও স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। প্রকৃতপক্ষে এটা দেহের জন্য উপকারী।

বাইরে থেকে ধুলোবালি পোকামাকড় কানে ঢুকলে তা আটকায় এবং এভাবে কানের পর্দা যা অত্যান্ত প্রয়োজনীয় এবং সাথে সাথে স্পর্শকাতর তাকে রক্ষা করে।

এর ফলে পানিও আটকায়। ব্যাকটেরিয়ানাশক গুন আছে। যার ফলে জীবাণু কানের প্রদাহ সৃষ্টিতে বাধা দেয়।  এর ফলে কানের দেওয়ালের পানি উবে যেতে পারে না। তাই কান খুব শুষ্ক হয়ে পড়ে না,  চুলকায় না।

কানের কোষসমূহ বৃদ্ধি পায় এবং তা বাইরের দিকে এগুতে থাকে। তার ফলে কানের ময়লাও তাতে আটকে পড়া বাইরে বস্তুসমূহও বেরিয়ে যায় বা সহজেই আঙ্গুল বা কাটি দিয়ে সরিয়ে ফেলা যায়।

এমন হলে সবচেয়ে বিজ্ঞানসম্মত উপায় হলো কাঠির মাথায় নরম টিস্যু পেপার বা কাপড় পেচিয়ে ব্যবহার করা। বহু ডাক্তার কানের ময়লার জন্যে উৎকন্ঠিত না হয়ে তা রেখে দেয়ারই সুপারিশ করে থাকেন। কিনউত প্রতিটি প্রাকৃতিক নিয়মের মতই এ ক্ষেত্রেও পরিস্থিতির অবনতি ঘটে থাকে। কানের ময়রা অতি বেশি পরিমাণে জমলে অসুবিধে সৃষ্টি করতে পারে। কানের রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়। ফলে কানে শোনা অসুবিধে ঘটে। স্কুলের ছেলেদের প্রায়ই এটা ঘটে।  বয়স্কদের এমন অবস্থা ঘটলে যখন তাদের শ্রবণশক্তি কমে যায় তখন খুব অস্বস্তিবোধ করেন। কারণ তারা মনে করেন এটা বার্ধ্যেকের আলামত। তার এর ফলে দারুন অসুবিধেয় পড়তে পারেন।

       কারণ কি ?

কানের ময়লা খুব বেশি পরিমাণে হবার  কারণ কি সে সম্বন্ধে জানা যায় না নিশ্চিন্তভাবে। তবে কতকগুলো জিনিসে যার মধ্যে জীবনযাত্রার অভ্যেস রয়েছে, অবস্থাকে আরও অবনতির পথে নিতে পারে।

  • কাঠির মাথায় তুলার পিন্ড জড়িয়ে কান পরিষ্কার করলে উপকারের চেয়ে অপকার বেশি হয়। তেমনি দেশালাইয়ের কাঠি, আলপিনের মাথা বা আঙ্গুলের নখ দিয়ে কান পরিষ্কার করলেও তাই ঘটে। লোকেরা এমন করে ভাবে যে তাতে অবস্থার উন্নতি হবে। কিন্তু তাতে ব্যাপারটার আরও অবনতি ঘটে। ময়লা আরও গভীরে ঢুকে পড়ে। কানের ভেতরে পর্দার কাছে ময়লা জমে না। সেখানে ময়লা বাইরে থেকে ঠেলা, খাওয়ার ফলে পৌঁছায়। কান পরিষ্কার এই ঠেলা খাওয়ার কারণ।
    • পানি দিয়ে ধোওয়া হলে উপকার পাওয়া যায় বলে অনেকে শাওয়ারে অনেকক্ষণ ধরে গোসল করে, কানে পানি লাগায়। কিন্তু তাতে উপকারের চেয়ে অপকার হয় বেশি। গোসল করার সময় বা অন্য কোন কারণে কানে পানি ঢুকলে কানের ময়লা আরও লেগে যায় বা ফুলে ফেঁপে উঠে পিত্ত সৃষ্টি করে।
    • কি ধরনের সিকরেশন কানের দেয়ালস্থ গ্রন্থি হতে নিঃ সৃত হয় তার ধরনের উপর ব্যাপারটা অনেকাংশে নির্ভর করে। বাচ্চাদের বেলায় সাধারণ তা নরম ভিজে থাকে এবং দেখতে মধুর মত। যত বয়স বাড়ে তা শক্ত হতে থাকে। প্রবীণ বয়সে তা শক্ত হয়ে পড়ে। তখন তা ফিক্সড হয়ে যায়, বাইরে বেরিয়ে আসতে পারে না। পানির সংস্পর্শে এলে তা আরও ফুলে ফেপে উঠে।

কারও কারও ক্ষেত্রে এই সেরুমেনের কারও ক্ষেত্রে এই সেরুমেনের পরিমাণের মাত্রা খুব বেশি। পক্ষান্তরে কারও কারও কানের খোল সংকীর্ন।

  • যারা কানে শোনার যন্ত্র ব্যবহার করেন তাদের আর এক উপদ্রুব। সে যন্ত্রের ফলে ময়লা বেরুতে পারে না।

করণীয় কি?

কারণ যাই হোক না কেন কানের ময়লাকে সরিয়ে ফেলতে হবে। অনেকভাবে তা করা যায়।এমনকি ঘরে বসেই। ময়লা যাতে আর জমতে না পারে তার ব্যবস্থা করা যায়। কিন্তু কিছু করার আগে আপনার উচিত প্রথমে নিশ্চিত হওয়া যে আপনার কানের পর্দা অক্ষত আছে, কানে কোন প্রদাহ নেই, পর্দায় কোন ফুটা নেই। সন্দেহ থাকলেই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

যদি ময়লা খুব বেশি পরিমাণে থাকে তবে কানে কিছু বেশি অয়েল বা এয়ার ড্রপ দিন যাতে ময়লার পিন্ড নরম হয়ে পড়ে। কিন্তু কানে যদি ফুটা থাক তবে এই এয়ারড্রপ ভেতরে ঢুকে প্রদাহ সৃষ্টি করবে। তাই সাবধান। অনেক বিশেষজ্ঞদের মতে, পানীয় ড্রপের চেয়ে তেলতেলে ড্রপ বেশি ভাল এবং তাতে প্রদাহ সৃষ্টি করার আশঙ্খা কম। দিনে ৬/৮ ফোটা ব্যবহার করতে পারেন।

যদি আপনার কানে ময়লা জমার প্রবণতা থাকে তবে সপ্তাহে একবার এয়ারড্রপ ব্যবহার করলে উপকার পাওয়া যেতে পারে। ড্রপ ব্যবহার করার পরও যদি ময়লা জমার সমস্যা থেকে যায় তবে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। তিনি হয়তো আরও কড়া ড্রপ দিবেন সাকশন করে ময়লা বের করবেন। অথবা আরও কোন বিশেষ পন্থা অবলম্বন করবেন, একবার ময়লা দূর হলে আপনার প্রদাহ দ্রুত কমে যাবে।


Leave a Reply

Call Now!